মাইক্রোক্রেডিট কি? এখানে সুদের হার কেমন? এই ঋণ পাওয়ার ক্ষেত্রে শর্ত কী?

25th July, 2023
886



মাইক্রোক্রেডিট কি?

অনুঋণ (মাইক্রোক্রেডিট) হল গ্রাম, আধা-শহর ও শহরের খুব ক্ষুদ্র সংখ্যার দরিদ্রদের উন্নতি, ঋণ এবং অন্যান্য অর্থনৈতিক পরিষেবা ও পণ্যের সুবিধা প্রদান যাতে তারা তাদের উপার্জন বাড়াতে পারে এবং জীবনযাত্রার উন্নতি ঘটাতে পারে। অনুঋণ (মাইক্রোক্রেডিট) সংস্থা তারাই যারা এইসব সুবিধা প্রদান করেন।

এখানে সুদের হার কেমন?

সুদের হারের পরিবর্তন ১৯৯১ সালে আমাদের দেশে নেওয়া অর্থনৈতিক সংস্কারের একটা অঙ্গ ছিল। এই সংস্কারের ধারা হিসাবে, অনুঋণ (মাইক্রোক্রেডিট) সংস্থাকে দেওয়া ব্যাংক ঋণ অথবা স্ব-নির্ভর দল (সেল্ফ-হেল্প গ্রুপ)/সদস্য-হিতকারীদের দেওয়া অনুঋণ (মাইক্রোক্রেডিট) সংস্থার ঋণের উপর সুদের হারকে তাদের ইচ্ছার উপর ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। ব্যাংক দ্বারা ব্যক্তি ঋণগ্রহণকারীদের সরাসরিভাবে দেওয়া ক্ষুদ্র ঋণের উপর সুদের হারের উচ্চ সীমা বহাল থাকবে।

এই ঋণ পাওয়ার ক্ষেত্রে শর্ত কী? 

বাস্তবিকতার কথা মাথায় রেখে ব্যাংকগুলি নিজস্বরূপে শর্তাবলী আরোপের সুযোগ দিয়েছে। তাদের নিজস্বভাবে ঋণ এবং সঞ্চয় প্রকল্পের পরিকল্পনা করতে বলা হয়েছে এবং তার সঙ্গে ঋণের পরিমান, ইউনিটের দাম, ইউনিটের আকৃতি, পরিণতিপ্রাপ্তির সময়াকাল, ছাড়ের সময়সীমা, মার্জিন ইত্যাদির সাথে সম্পর্কিত সকল শর্তাবলী। এই সকল ক্রেডিট যে শুধু দরিদ্রদের ফার্ম ও অ-ফার্মের ব্যয় ও তৈয়ারীকরণের ঋণ দেয় না, তা অন্যান্য ক্রেডিট যেমন গৃহ ও আচ্ছাদনের উন্নতির ক্ষেত্রেও ঋণ দেয়।

 




কেন আপনি সমিতি ম্যানেজার সফটওয়্যারটি ব্যবহার করবেন? Thursday, 27th July, 2023

কোন ব্যবসা সুন্দর ভাবে পরিচালনা করতে হলে তার ম্যানেজমেন্ট সুন্দর হওয়া খুবই গরুত্বপূর্ণ। আর সেই ব্যবসা যদি হয় অর্থনৈতিক, তবে তার হিসাব নিকাশ সুক্ষ্ম ও নির্ভুল হওয়া একান্ত জরুরী। আমরা বিশ্বাস করি আপনার সুন্দর ব্যবসার নির্ভুল হিসাব ও সুক্ষ্ম সংরক্ষন আপনার ব্যবসাকে আরো গতিশীল করবে। সেক্ষেত্রে আপনাকে সহায়তা করবে আমাদের সমিতি ম্যানেজোর সফটওয়্যার। 

কেন আপনি সমিতি ম্যানেজার সফটওয়্যারটি ব্যবহার করবেন?
সমিতি ম্যানেজার হলো একটি সচ্ছ, সুন্দর ও নির্ভুল হিসাবধারী সফটওয়্যার। এর মাধ্যমে আপনি আপনার ব্যবসায়ী সমতির হিসাব নিকাশ সংরক্ষন করতে পারবেন অতি সহজে ও নির্ভুল ভাবে। যা আনপার ব্যবসাকে করবে সহজ ও আরো গতিশীল।

সমিতি ম্যানেজার যেভাবে কাজকরে-
১. গ্রাহকের প্রোফাইলে যাবতীয় তথ্যাদী সংরক্ষন করা।
২. সাধারণ ডিপোজিট, ফিক্সড ডিপোজিট, ডিপিএস ও ইনসুরেন্স গ্রহনের সুবিধা।
৩. লোন প্রদান ও আদায়ের সাথে মেনুয়ালী ইন্টারেস্ট বসানোর সুবিধা, যা মূল লোনের সাথে অটো ক্যালকুলেশন হবে।
৪. লোন রিনুয়াল সুবিধা। ৫. তারিখ অনুযায়ী গ্রাহকের লেনদেন স্ট্রেটমেন্ট দেখা।
৬. সকল কালেকশনের সামরি দেখা ও প্রিন্ট করা।
৭. কাস্টমারের আদায় সীট ও লেজার প্রিন্ট।
৮. কাস্টমারকে লেনদেনের নিশ্চিতকরন এস.এম.এস দেয়া।
৯. ব্যাংক ডিপোজিট।
১০. ওয়েলফেয়ার।
১১. সেটেলমেন্ট এ্যাডজাস্টমেন্ট।
১২. কর্মচারীদের বেতন ভাতা প্রদানের সুবিধা।
১৩. ভূল লেনদেন সংশোধনের সুবিধাতো থাকছেই সাথে থাকছে আনলিমিটেড ইউজার দেয়ার সুবিধা।
তাই কাল বিলম্ব না করে এখনি ডাউনলোড করুন সমিতি ম্যানেজার সফটওয়্যার।

সমিতি ম্যানেজার কিভাবে কাজ করে? Monday, 24th July, 2023

সমিতি ম্যানজার হলো একটি সচ্ছ, সুন্দর ও নির্ভুল হিসাবধারী সফটওয়্যার। এর মাধ্যমে আপনি আপনার ব্যবসায়ী সমতির হিসাব নিকাশ সংরক্ষন করতে পারবেন অতি সহজে ও নির্ভুল ভাবে।

সমিতি ম্যানেজার যেভাবে কাজ করে-

১. গ্রাহকের প্রোফাইলে যাবতীয় তথ্যাদী সংরক্ষন করা।
২. সাধারণ ডিপোজিট, ফিক্সড ডিপোজিট, ডিপিএস ও ইনসুরেন্স গ্রহনের সুবিধা।
৩. লোন প্রদান ও আদায়ের সাথে মেনুয়ালী ইন্টারেস্ট বসানোর সুবিধা, যা মূল লোনের সাথে অটো ক্যালকুলেশন হবে।
৪. লোন রিনুয়াল সুবিধা। ৫. তারিখ অনুযায়ী গ্রাহকের লেনদেন স্ট্রেটমেন্ট দেখা।
৬. সকল কালেকশনের সামরি দেখা ও প্রিন্ট করা।
৭. কাস্টমারের আদায় সীট ও লেজার প্রিন্ট।
৮. কাস্টমারকে লেনদেনের নিশ্চিতকরন এস.এম.এস দেয়া।
৯. ব্যাংক ডিপোজিট।
১০. ওয়েলফেয়ার।
১১. সেটেলমেন্ট এ্যাডজাস্টমেন্ট।
১২. কর্মচারীদের বেতন ভাতা প্রদানের সুবিধা।
১৩. ভূল লেনদেন সংশোধনের সুবিধাতো থাকছেই সাথে থাকছে আনলিমিটেড ইউজার দেয়ার সুবিধা।
তাই কাল বিলম্ব না করে এখনি ডাউনলোড করুন সমিতি ম্যানেজার সফটওয়্যার।

আমাদের রয়েছে সুপার সিকিউর ক্লাউড ডাটা স্টোরেজ সেন্টার (বাই আলফানেটা)। যেখানে আপনার ডাটা থাকবে সুরক্ষিত। গ্রাহকের ডেটা সিকিউরিটির জন্য আমরা শতভাগ সহায়তা প্রদান করি। 

সমিতি ম্যানেজার মূলত কি ধরনের সফটওয়্যার? এটি ব্যবহারের নিয়ম কি? Tuesday, 25th July, 2023

সমিতি ম্যানেজার মূলত কি ধরনের সফটওয়্যার? 

সমিতি ম্যানেজার একটি মাইক্রোফাইন্যান্স বিজনেস ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার। পৃথিবীর যেকোন প্রান্তে বসে আপনি আপনার মাইক্রোফাইন্যান্স ব্যবসার হিসাব মনিটরিং করতে পারবেন অনায়াসে। এই সফটওয়ারটি তৈরী করা হয়েছে মূলত: আর্থিক প্রতিষ্ঠানের (বিভিন্ন সমবায় সমিতি/ মাল্টিপারপাস /এনজিও/বীমা) সদস্যদের তথ্য সংরক্ষণ ও আর্থিক ব্যবস্থাপনার কাজকে সহজ ও সাবলিল করার জন্য। 

এই সফটওয়ারের মাধ্যমে সহজেই কোন আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সকল কর্মকর্তা, কর্মচারী ও সদস্যদের ছবি সহ সকল প্রয়োজনীয় তথ্য সংরক্ষণ (Save), সংযোজন(Add), বিয়োজন(Delete), সম্পাদনা (Edit) ও তল্লাশি (Search) করা যায়।

যা থাকছে এখানেঃ

* প্রতিষ্ঠানের সকল ধরণের খরচ খাতওয়ারী, তারিখ অনুযায়ী, যে কোন শাখার যে কোন কর্মীর আওতায় যে কোন সদস্যের নামে প্রয়োজনীয় তথ্যসহ এন্টি করা যায়।

* সংরক্ষিত তথ্য মোছা, সংশোধন, শাখাওয়ারী/মাসওয়ারী/বছর ওয়ারী মোট খরচ বের করা, কোন কর্মী/সদস্যের আওতায় কত খরচ তা জানা যায়, মাস বা বছর ওয়ারী যে কোন খরচের তথ্য রিপোর্ট আকারে প্রিন্ট করা যায়।

* প্রতিষ্ঠানের সকল ধরণের আয় খাতওয়ারী, তারিখ অনুযায়ী, যে কোন শাখার যে কোন কর্মীর আওতায় যে কোন সদস্যের নামে প্রয়োজনীয় তথ্যসহ এন্টি করা যায়।

* এছাড়া সংরক্ষিত তথ্য মোছা, সংশোধন, শাখাওয়ারী/মাসওয়ারী/বছর ওয়ারী মোট আয় বের করা, কোন কর্মী/সদস্যের আওতায় কত জমা হল তা জানা যায়, মাস বা বছর ওয়ারী যে কোন আয়ের তথ্য রিপোর্ট আকারে প্রিন্ট করা যায়।

* এই সফটওয়ারের মাধ্যমে সহজেই যে কোন শাখার সকল তথ্য (ম্যানেজারের তথ্য, সকল কর্মী, সদস্য, মোট আয়, মোট খরচ প্রভৃতি) জানা যায়।

* বিনিয়োগ সংক্রান্ত সকল তথ্য (কবে, কাকে, কোন খাতে, কত টাকা বিনিয়োগ করা হয়েছে, গ্রহিতার ছবিসহ স্বাক্ষর, গ্যারান্টারের ছবিসহ স্বাক্ষর, কত কিস্তিতে, কত লাভে, কত দিনের মধ্যে টাকা পরিশোধ করতে হবে ইত্যাদি) এই সফটওয়ারের মাধ্যমে সহজেই ব্যবস্থাপনা করা যায়।

* বছর শেষে অডিট রিপোর্ট এর জন্য দিনের পর দিন কষ্ট করে হিসেব নিকেশ করতে হয় না। মাত্র এক মিনিটেই আপনার এই সকল হিসেব-নিকেশ এর আউটপুট দিতে সক্ষম।

* বাৎসরিক লাভ লোকসান , মাসিক লাভ লোকসান , Balance sheet, প্রফিট বিতরন, Trial Balance, ব্যাংক হিসেব-নিকেশ, পার্সোনাল স্টেটমেন্ট , ভাউচার , জেনারেল লেজার ইত্যাদি সকল প্রকার একাউন্টিং রিপোর্ট রেডি করা রয়েছে।

 

মাইক্রোক্রেডিট কি? এখানে সুদের হার কেমন? এই ঋণ পাওয়ার ক্ষেত্রে শর্ত কী? Tuesday, 25th July, 2023

মাইক্রোক্রেডিট কি?

অনুঋণ (মাইক্রোক্রেডিট) হল গ্রাম, আধা-শহর ও শহরের খুব ক্ষুদ্র সংখ্যার দরিদ্রদের উন্নতি, ঋণ এবং অন্যান্য অর্থনৈতিক পরিষেবা ও পণ্যের সুবিধা প্রদান যাতে তারা তাদের উপার্জন বাড়াতে পারে এবং জীবনযাত্রার উন্নতি ঘটাতে পারে। অনুঋণ (মাইক্রোক্রেডিট) সংস্থা তারাই যারা এইসব সুবিধা প্রদান করেন।

এখানে সুদের হার কেমন?

সুদের হারের পরিবর্তন ১৯৯১ সালে আমাদের দেশে নেওয়া অর্থনৈতিক সংস্কারের একটা অঙ্গ ছিল। এই সংস্কারের ধারা হিসাবে, অনুঋণ (মাইক্রোক্রেডিট) সংস্থাকে দেওয়া ব্যাংক ঋণ অথবা স্ব-নির্ভর দল (সেল্ফ-হেল্প গ্রুপ)/সদস্য-হিতকারীদের দেওয়া অনুঋণ (মাইক্রোক্রেডিট) সংস্থার ঋণের উপর সুদের হারকে তাদের ইচ্ছার উপর ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। ব্যাংক দ্বারা ব্যক্তি ঋণগ্রহণকারীদের সরাসরিভাবে দেওয়া ক্ষুদ্র ঋণের উপর সুদের হারের উচ্চ সীমা বহাল থাকবে।

এই ঋণ পাওয়ার ক্ষেত্রে শর্ত কী? 

বাস্তবিকতার কথা মাথায় রেখে ব্যাংকগুলি নিজস্বরূপে শর্তাবলী আরোপের সুযোগ দিয়েছে। তাদের নিজস্বভাবে ঋণ এবং সঞ্চয় প্রকল্পের পরিকল্পনা করতে বলা হয়েছে এবং তার সঙ্গে ঋণের পরিমান, ইউনিটের দাম, ইউনিটের আকৃতি, পরিণতিপ্রাপ্তির সময়াকাল, ছাড়ের সময়সীমা, মার্জিন ইত্যাদির সাথে সম্পর্কিত সকল শর্তাবলী। এই সকল ক্রেডিট যে শুধু দরিদ্রদের ফার্ম ও অ-ফার্মের ব্যয় ও তৈয়ারীকরণের ঋণ দেয় না, তা অন্যান্য ক্রেডিট যেমন গৃহ ও আচ্ছাদনের উন্নতির ক্ষেত্রেও ঋণ দেয়।